Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

কলমাকান্দায় নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ৩

শেখ শামীম, কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) থেকে / ৭০ বার
আপডেট সময় :: বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১

কলমাকান্দা (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি : নেত্রকোণার কলমাকান্দা উপজেলায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় পরাজিত চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রার্থী দুজনসহ তিনজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে মাথায় আঘাতজনিত কারণে বমিবমি ভাব হওয়ায় মীর আইয়ুব নবীকে (৪৮) উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে রেফার্ড করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক সোরাইব হোসেন লিংকন। মীর আইয়ুব নবী  কলমাকান্দা  উপজেলার রংছাতি ইউপিতে স্বতন্ত্রপ্রার্থী চশমা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে পরাজিত হন। ওই ইউপির মনিপুর গ্রামের বাসিন্দা তিনি।

পৃথক আরেক ঘটনায় পরাজিত মেম্বার প্রার্থী রমজান মিয়া (৩৮) ও তার সহোদর বড় ভাই মোখলেছ মিয়া (৪৫) প্রতিপক্ষের কুড়ালের কুপে তারা দুজনেরই বাম পায়ে ১৯টি সেলাই লেগেছে। তারা কলমাকান্দা  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। রমজান মিয়া  উপজেলার খারনৈ ইউনিয়নের খারনৈ গ্রামের বাসিন্দা এবং ফুটবল প্রতীক নিয়ে ইউপি সদস্য পদে নির্বাচনে অংশ নিয়ে পরাজিত হন।

মীর আইয়ুব নবী গত ২৮ নভেম্বর তৃতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচনে পরাজয়ের পরে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওমরগাঁও নতুন বাজার এলাকায় নির্বাচন পরবর্তী স্থানীয়দের সাথে কৌশলাদি বিনিময় করছিলেন।

এসময় একই ইউপিতে টেলিফোন প্রতীক নিয়ে পরাজিত আরেক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. সুরুজ মিয়ার উপস্থিতিতে ও তার ছেলেরাসহ ৭-৮জন মিলে অতর্কিত হামলা করে মীর আইয়ুবের ওপর। শরীরের বিভিন্ন স্থানে কিল-ঘুষি ও মাথায় লাঠির আঘাতে আঘাতপ্রাপ্ত হন তিনি।

পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কলমাকান্দা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করান। বুধবার সকাল থেকে বমিবমি থাকায় তাকে দুপুরের দিকে মমেক হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

এবিষয়ে প্রতিপক্ষ পরাজিত চেয়ারম্যানপ্রার্থী মো. সুরুজ মিয়া জানান, ‘পোলাপানে ঠেলা-ধাক্কা দিছে। আমি ফিরাইছি। কেন্দ্রে আমার ছেলেকে মন্দছারিসহ ছোবাইবো (মারধর) বলেছে আইয়ুবকে হোন্ডায় করে যে ছেলেটা ঘুরায়। এনিয়ে বিচার দিছি মনিপুরপাড়ার কয়জনের কাছে। ওইদিন আইয়ুব নতুনবাজারে আইলে কি-রে আইযুব, এই কইলে সে কই ওইসব নির্বাচনে হইয়া থাকে। পরে আমার একটা ছেড়া (ছেলে) ধইরা রাইছে। পরে আমি ফিরাইছি।’

এদিকে উপজেলার খারনৈ গ্রামে পৃথক আরেক ঘটনায় ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পদে পরাজিত প্রার্থী রমজান মিয়া  (৩৮) পাঁচ সেলাই ও ১৪ সেলাই নিয়ে তার বড় ভাই মোখলেছ মিয়া (৪৫) প্রতিপক্ষের কুড়ালের কোপে তারা কলমাকান্দা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। তারা জানান, গত মঙ্গলবার বিকেলে দুই ভাই জমিতে কৃষি কাজ করছিলেন। এসময় একই ওয়ার্ডের মোরগ প্রতীকে পরাজিত ও বর্তমান মেম্বার জামাল হোসেন পক্ষের লোকজন ইউসুফের নেতৃত্বে কয়েকজন মোখলেছকে পেছনে দিকে বাম পায়ে কুড়াল দিয়ে কোপ দেয়। তা দেখে রমজান আলী বাঁধা দিলে তাকেও কিল ঘুষিসহ বাম পায়ে কুড়াল দিয়ে কুপ দেয়। তাদেরকে এলাকাবাসী উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে দুজনের বাম পায়েই ১৯ সেলাই লেগেছে এবং থানায় অভিযোগ দিয়েছেন এমন তথ্য জানান ওই ভূক্তভোগী দুজন।

এ ব্যাপারে কলমাকান্দার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  (ওসি) মো. আবদুল আহাদ খান পরাজিত মেম্বার প্রার্থীর অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের  জানান, অভিযোগটি মামলা হিসেবে রুজু করা প্রক্রিয়াধীন। চেয়ারম্যান প্রার্থীর আহতের ঘটনায় অভিযোগ পায়নি। তবে খবর পেয়ে হাসপাতালে পুলিশ গিয়েছিল।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com