Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

দুর্গাপুরে গণসংযোগে ব্যস্ত মহিলা আসনের প্রার্থী সূচনা সাংমা

রিপোর্টারের নাম / ১০৪ বার
আপডেট সময় :: মঙ্গলবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২১

দুর্গাপুর(নেত্রকোণা)প্রতিনিধি : ভোট একটি নাগরিক অধিকার, ভোটের মাধ্যমে যোগ্য প্রার্থী নিবার্চন করা যায়, নিজ নিজ মতামত প্রকাশ করা যায়, একজন যোগ্য প্রতিনিধি নির্বাচনের মাধ্যমে এলাকার সমস্যার বা উন্নয়নের কথা গুলো তুলে ধরা যায়। মঙ্গলবার রাতে দাহাপাড়া এলাকায় স্থানীয়দের সাথে গণসংযোগ শেষে সাংবাদিকদের এ কথা গুলো বলছিলেন নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলা ২নং দুর্গাপুর সদর ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থী সূচনা সাংমা।

সারাদেশের ন্যায় দুর্গাপুর উপজেলাতেও বইতে শুরু করেছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া। তৃতীয় ধাপের এই নির্বাচন কে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ইউনিয়নের মতো ২নং দুর্গাপুর ইউনিয়নেও চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। কে কাকে ভোট দিবে, কে করতে পারবে ইউনিয়নের উন্নয়নমুলক কাজ। ইতোমধ্যে ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনে অন্যান্য প্রার্থী থাকলেও আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় একমাত্র আদিবাসী মহিলা হিসেবে ইতোমধ্যে সাধারণ ভোটারদের মন জয় করে নিয়েছেন সূচনা সাংমা। তিনি উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করার পর অত্র এলাকার সাধারণ মানুষের নানা সমস্যা সমাধান সহ এলাকার উন্নয়নে জনপ্রতিনিধি না হয়েও ইউনিয়ন পরিষদ তথা উপজেলা প্রশাসন থেকে শুরু করে দুর্গাপুর থানায় গিয়ে সাধারণ মানুষের কাজে সহায়তা করে থাকে। এরই প্রেক্ষিতে সাধারণ মানুষের ডাকে সারাদিতে গিয়ে অত্র ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

অন্যান্য প্রার্থীদের মতো গণসংযোগে ব্যস্ত রয়েছেন সাদা মনের মানুষ, সদা পরোপকারী সূচনা সাংমা। গোপালপুর, ভবানীপুর, দাহাপাড়া, তিনআলী, নলুয়াপাড়া এলাকায় গণসংযোগ শেষে সাংবাদিকদের সাথে এক সাক্ষাতে তিনি বলেন, বিগত সময়ে একজন মানুষ হিসেবে সাধারণ মানুষের সকল বিপদ-আপদে সাধ্যমত ঝাপিয়ে পড়েছি। আমি যদি জনপ্রতিনিধি না হয়েও আমার ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষের পাশে থাকতে পারি, সকল কাজে সহায়তা করতে পারি, তাহলে সাধারণ ভোটারগন আমায় বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী করবে। আমার কর্ম, আমার সততা এবং আমার দলীয় নির্দেশনাই আমার বড় হাতিয়ার। অত্র ইউনিয়ন সীমান্তবর্তী এলাকায় অবস্থিত বিধায় অন্যান্য ইউনিয়নের চেয়ে দুর্গাপুর ইউনিয়ন অনেক গুরুত্বপুর্ন। অত্র ইউনিয়নে আদিবাসী জনগোষ্ঠীর জীবনমান তথা নি¤œ আয়ের মানুষের পরিবারে শিক্ষা, সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে নতুন ভাবে কাজ করতে হলে যোগ্য প্রতিনিধির প্রয়োজন। আমি নির্বাচিত হলে এলাকার মুরুব্বীদের নিয়ে পরামর্শ করে, সকল উন্নয়ন মুলক কাজ করবো। সঠিক পরিকল্পনা অনুযায়ী ধারাবাহিক বরাদ্দ ছাড়াও কিভাবে অতিরিক্ত বরাদ্দ আনা যায় সেইদিক লক্ষ্য রেখে অত্র ওয়ার্ডের অসমাপ্ত কাজ গুলো সমাপ্ত করা সহ আদিবাসীদের দীর্ঘদিনে প্রত্যাশা বর্ডার হাট কার্যক্রম বাস্তবায়ন করবো। সেইসাথে আদিবাসী অঞ্চল গুলোতে খাবার পানির ব্যবস্থা, শিক্ষা ও কর্মমুখী মুলক কর্মসংস্থান, শ্রমজীবি মানুষদের নিয়ে আত্মকর্মস্থাপনে পরিকল্পনা সহ বেকার যুবকদের উৎপাদন মুখি কাজে লাগিয়ে অবহেলিত ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডকে এগিয়ে নিবো যাবো।

সাধারণ ভোটারদের মধ্যে কৃষক ফজর আলী, রহিম উদ্দিন, আতিকুল ইসলাম বলেন, ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডে অনেক মহিলা কেই মেম্বার বানিয়েছি, কিন্ত কেউ অত্র ওয়ার্ডের তেমন কোন উন্নতি করতে পারেনি। আমরা এবার সূচনা দিদিকে ভোট দিবো, তিনি উচ্চ শিক্ষিত, আমাদের কথা গুলো পরিষদে তুলে ধরতে পারবে। আমরা আর ভুল করবো না, সবাই মিলে সূচনা দিদিকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করবো।

গণসংযোগে গ্রামের সাধারণ ভোটারদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, হানিফ মিয়া, গিয়াস উদ্দিন, আব্দুস সাত্তার, হাবিল উদ্দিন, রণ সাংমা, বাচ্চু মিয়া, আব্দুল কুদ্দুস, অন্তরা হাজং প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com