Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

দুর্গাপুরে স্বামীর অধিকার চেয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে সালমা

রিপোর্টারের নাম / ১৯৬ বার
আপডেট সময় :: শুক্রবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১

দুর্গাপুর(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি : নেত্রকোনার দুর্গাপুরে স্বামীর অধিকার চেয়ে দ্বারে-দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছে সামলা আক্তার। বিল্লাল হোসেন (৩৩) এক যুবক ৫টি বিয়ে এবং ৬ সন্তানের পিতা হয়েও শেষ পর্যন্ত কোন স্ত্রীকেই ঘরে ঠাই না দিয়ে নানা ভাবে অত্যাচার ও যৌতুক দাবী করে তাড়িয়ে দেয় বিল্লাল। শুক্রবার বিকেলে এমনটাই জানালেন ভুক্তভোগি সালমা।

এ নিয়ে সরেজমিনে গিয়ে জানাগেছে, দুর্গাপুর পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের বাসিন্ধা মৃত হাছেন আলীর পুত্র বিল্লাল হোসেন (৩৩)। এ যাবত ৫টি বিয়ে এবং ৬ সন্তানের পিতা হয়েও যৌতুক ও নারী লোভী বিল্লাল থেমে নেই এ জঘন্য কর্মকান্ড থেকে। বিয়ে পাগল বিল্লালের নেশাই হলো কাবিন বিহীন গ্রামের গরিব ঘরের সুন্দরী মেয়েদের ফুসলিয়ে বিয়ে করে কিছুদিন যেতে না যেতেই যৌতুক দাবী করা, যৌতুক না পেলে মারপিট করে স্ত্রীকে মৌখিক তালাক দিয়ে মেয়ের বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া। এমনটাই ঘটেছে বিল্লালের ৫ম স্ত্রী সালমা খাতুন (২০) এর জীবনে। স্ত্রীর অধিকার চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছে সালমা।

এ নিয়ে সালমার বাবা মোঃ দুলাল মিয়া জানান, আজ থেকে ১৭ মাস আগে তার কন্যা সালমা খাতুন ওই এলাকার ভাঙ্গাব্রীজ এলাকার দোকান থেকে কেনাকাটা করতে যায়। সেখান থেকে লম্পট বিল্লাল জোরপূর্বক সালমাকে তুলে নিয়ে তার বাড়ীতে একই গ্রামের হামিদ এর পুত্র কাকন মিয়া, ইদ্রিস আলীর পুত্র আসাদ ও বাদশা মিয়ার পুত্র আবুলসহ অন্যান্যদের উপস্থিতিতে সালমাকে কাবিন বিহীন বিয়ে করে। এর পর থেকে চলতে থাকে তাদের সংসার, এরি মাঝে তাদের একটি পুত্র সন্তান জন্মনেয়, বর্তমাপন বয়স তার ৪ মাস। বিগত কয়েক মাসধরে লম্পট বিল্লাল যৌতুকের দাবীতে সালমার উপর চালায় অমানুসিক নির্যাতন। বিগত ১৮আগস্ট সালমার কাছে এক লক্ষ টাকা যৌতুক দাবীতে পুনরায় নির্যাতন ও মারপিট করলে সালমা অজ্ঞান হয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় আমি তাকে সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করাই। চিকিৎসা শেষে নিরুপায় হয়ে আমার বাড়ীতে নিয়ে আসি। সন্তান সহ ঘর-সংসার করতে চায় সালমা, কিন্তু এতে পাত্তাই দিচ্ছেনা অর্থলোভী বিল্লাল।

উল্লেখ্য : ফুলপুর-নোয়াগাও গ্রামের পিতা-অজ্ঞাত নার্গিস বেগম’কে প্রথম বিয়ে করে ঐ স্ত্রীর ১ কন্যা সন্তান রয়েছে। দশাল গ্রামের মৃত-আঃ সাত্তারের মেয়ে রবিনা খাতুন’কে দ্বিতীয় বিয়ে করে ঐ স্ত্রীর ১পুত্র সন্তান রয়েছে। সাতাশি গ্রামের পিতা-অজ্ঞাত চাঁদনী বেগম’কে তৃতীয় বিয়ে করে, ঐ স্ত্রীর রয়েছে ১পুত্র। কলমাকান্দার পিতা-অজ্ঞাত পিংকী বেগম’কে চতুর্থ বিয়ে করে ঐ স্ত্রীর রয়েছে ২পুত্র। সর্বশেষ দশাল গ্রামের দুলাল মিয়ার কন্যা সালমাকে ৫ম বিয়ে করে তার রয়েছে ৪ মাসের পুত্র সন্তান। সালমা’র দাবী পুত্র সন্তান সহ তাকে স্ত্রীর পূর্ণ মর্যাদা দেওয়া হউক, সেও সন্তান স্বামী নিয়ে ঘর-সংসার করে জীবন কাটাতে চায়। এ নিয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন সালমা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com