Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

কলমাকান্দায় বন্ধুর বাড়িতে বেড়াতে এসে বন্ধুর মৃত্যু

শেখ শামীম, কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি / ১৯৭ বার
আপডেট সময় :: মঙ্গলবার, ১৩ জুলাই, ২০২১

কলমাকান্দা(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি : নেত্রকোণার কলমাকান্দায় বন্ধুর বাড়িতে বেড়াতে এসে রহস্যজনক ভাবে আরেক বন্ধুর মৃত্যু হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনাটি ঘটে কলমাকান্দা উপজেলা সদর ইউনিয়নের পাঁচুড়া গ্রামে। মঙ্গলবার  (১৩ জুলাই) দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য আধুনিক সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠিয়েছে কলমাকান্দা থানা পুলিশ।
নিহত মোমেন মিয়া নেত্রকোণা সদর উপজেলার বেতাটি গ্রামে মৃত মঞ্জু মিয়া ও মিনা আক্তারের পুত্র সন্তান। সন্তানের মৃত্যুতে মাতা বাকরুদ্ধ। মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে ওই এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।
পুলিশ ও নিহতের পরিবারের সুত্রে জানা যায়, আজ থেকে প্রায় ৭ বছর পূর্বে  কলমাকান্দা উপজেলার সদর ইউনিয়নের পাঁচুড়ার কটু শেখের পুত্র তোফাজ্জল হোসেন (২৫) এর সাথে নেত্রকোণায় পাইলিং কাজ একসাথে কাজ করার সুবাদে তাদের মধ্যে পরিচয় হয় মোমের। পরবর্তীতে তোফাজ্জল তার এলাকায় মোমেন তার ধর্মের ভাই বলে পরিচয় করিয়ে দেয়। এর সুবাদে তাদের দু’জনের মধ্যে ভাল সম্পর্ক হয়। প্রায় সময় মোমেন কলমাকান্দায় তোফাজ্জলের বাড়িতে আসা-যাওয়ার করত। সর্বশেষ ১২ জুলাই সোমবার সন্ধ্যায় মোমেন তার মামার বাড়ি নেত্রকোণা সদরে বর্ণি গ্রাম থেকে কলমাকান্দার তোফাজ্জলের বাড়িতে বেড়াতে যায়। বন্ধুর বাড়িতে যাওয়ার পর পরই অসুস্থবোধ করেন মোমেন। অবস্থা অবনতি  দেখে ওইদিন রাতেই  তোফাজ্জল ও তার পরিবারের লোকজন মোমেনকে কলমাকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো. ইকরামুল হক  মৃত ঘোষনা করেন।
কলমাকান্দা থানার  ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল আহাদ খান জানান , হাসপাতালের  কর্তব্যরত চিকিৎসকের মোমেনের মৃত্যু রহস্যজনক বলে থানা পুলিশ কে জানান। পরে রাতেই হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়। নিহতের মরদেহ সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে মঙ্গলবার দুপুরে  ময়নাতদন্তের জন্য আধুনিক সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলেই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। পরবর্তীতে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।
এবিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো. ইকরামুল হকের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, হাসপাতালের নিয়ে আসার পূর্বেই মোমেনের মৃত্যু হয়েছে। আমার কাছে রহস্যজনক মনে হয়েছে বিষয়টি । পরে আমি থানা পুলিশকে খবর দেয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com