Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

খালিয়াজুরীতে কর্তৃপক্ষের ভূলে ভাতাবঞ্চিত বয়স্ক-বিধবারা

রিপোর্টারের নাম / ৫৮ বার
আপডেট সময় :: বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১

খালিয়াজুরী(নেত্রকোনা)সংবাদদাতা : মোবাইল ফোনের ভূল নম্বরে টাকা পাঠানোর কারণে নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলা সমাজসেবা বিভাগের তালিকাভূক্ত অসংখ্য বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধিরা ভাতার টাকা পাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।
এমনটি জানিয়েছেন খালিয়াজুরী সদরের ভূক্তভোগী আব্দুর রউফ, ফজলুল হক, মিনারা অক্তার চায়না বেগম, দিলোয়ারা বেগম, মঞ্জু আক্তার, বীরেন্দ্র বর্মন, জবা সরকারসহ অনেকেই।

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) সকালে ওই ভূক্তভোগীরা বলেন, তারা তাদের মোবাইল নম্বর সঠিক ভাবে দিলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ প্রকৃত মোবাইল নম্বরের তালিকা না করে যাচাই বাছাই ছাড়া এখানকার অসংখ্য ভাতাভোগীর টাকা অন্য নম্বরে পাঠিয়েছে। ফলে এ ভাতার টাকা ভূক্তভোগীরা আর কখনও পাবেন কী না খালিয়াজুরী সমাজসেবা অফিসে বার বার গিয়েও সেসবের কোন সদুত্তর পাওয়া যাচ্ছে না।

ভাতাভোগীদের টাকা কিভাবে ভূল নম্বরে গেল ? এমন প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সমাজসেবা কমকর্তা মাহফুজ ইবনে আইয়ূব জানান, খালিয়াজুরী উপজেলায় সরকারি তালিকাভূক্ত বয়স্ক ভাতাভোগী রয়েছেন ৪ হাজার ৫শ ৭৮জন। বিধবা ভাতাভোগী রয়েছেন ২ হাজার ৪শ ৭৮জন। তাদের প্রতিজনকে প্রতি মাসে দেয়া হয় ৫শ টাকা হারে। এখানে প্রতিবন্ধি ভাতাভোগী রয়েছেন ১ হাজার ৬শ৭৮জন। তাদের প্রতিজনকে প্রতি মাসে দেয়া হয় সাড়ে ৪শ টাকা হারে। এসব ভাতাভোগীদেরকে চলতি মাসে ইলেকট্রনিক্স ফান্ড ট্রান্সফার (ইএফটি) পদ্ধতির মোবাইল ফোন নম্বরের ‘নগদ’ লেনদেন মাধ্যমের আওতায় আনা হয়েছে। এ আওতায় আনতে ব্যাবহার করা হয়েছে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস)। এমআইএস পরিচালিত এখানকার এ কাজটি করেছেন স্থানীয় ইউপির উদ্যোক্তা আর লেনদেন ‘নগদ’ প্রতিষ্ঠানের লোকজন। এমআইএস কাজ করার সময়ই তারা ভাতাভোগীদের মোবাইল নম্বর লিখতে ভূল করেছে বলেই এখন ভূল নম্বরে টাকা যাচ্ছে। প্রতিজনকে এক সাথে ৯ মাসের এ টাকা পাঠানো হচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংকের আওতায়। ইতিমধ্যে শতকরা প্রায় এক ভাগ ভাতাভোগী অফিসে এসে খোঁজ নিয়ে জেনেছেন তাদের টাকা অন্য নম্বরে চলে গেছে। এখানকার সমস্যার কথা সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ভাতাভোগীদের মোবাইল নম্বর ভূল লিখার ব্যাপারে খালিয়াজুরী সদর ইউপির উদ্যোক্তা রাজেস্বর দেব নাথ রাজু উল্টো সমাজ সেবা বিভাগকে দায়ি করে বলেন, আমরা উদ্যোক্তারা ওই মোবাইল নম্বর লিখার কাজই করিনি। তবে, ‘নগদ’ প্রতিষ্ঠানের কেউ খালিয়াজুরীতে না থাকায় এ ব্যাপারে চেষ্টা করেও তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। #


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com