Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

দুর্গাপুর-শ্যামগঞ্জ মহাসড়কে থামছেনা মৃত্যুর মিছিল গত ৪০ মাসে ৫০ জনের মৃত্যু

রিপোর্টারের নাম / ২৩৮ বার
আপডেট সময় :: বুধবার, ৩০ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:৪৯ অপরাহ্ন

মোঃ মোহন মিয়া, দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) থেকে : নেত্রকোনার দুর্গাপুর-শ্যামগঞ্জ মহাসড়কে ভারি ট্রাক, ড্রামট্রাক, সিত্রনজির চাপায় এখনো থামছে না মৃত্যুর মিছিল। গত চার বছরে প্রায় ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এর পরেও প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা সত্বেও চলছে লড়ি গাড়ী, বহন করছে ভিজা বালু, নদী থেকে অবৈধ বাংলা ড্রেজার দিয়ে দিন-রাত ২৪ঘন্টাই উত্তোলন করা হচ্ছে বালু। শহরের রাস্তা গুলো চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে, মানা হচ্ছেনা কোন সরকারি নির্দেশনা। যে কারনে বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা, শত বলার পরেও কেন প্রশাসন জোড়ালো পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। আর কত প্রান গেলে জাগবে প্রশাসন, তা এখন সময়ের দাবী।

সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ে এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ৩০ নভেম্বর ২০১৭ স্থানীয় বনরুপা নাট্যগোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা ও বিরিশিরি উৎরাইল বাজার কমিটির সভাপতি শিমুলতলী গ্রামের নুরুল ইসলাম ছোট্র মিয়ার স্ত্রী, ছেলে, ছেলের স্ত্রী এবং সিএনজির ড্রাইভার সহ মোট ৫ জন ঘঁনাস্থলে মৃত্যুবরন করেন। গত ২২ অক্টোবর ২০১৯ ময়মনসিংহের গোরীপুর উপজেলার প্রায় ৬০ জন শিক্ষার্থী দুর্গাপুর সীমান্তে বনভোজন করতে এসে বাড়ি ফেরার পথে স্থানীয় কৃষ্ণেচর বাজারে মহাসড়কে ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে পিষ্ট হয়ে ৪ জন তরুন মেধাবী শিক্ষার্থী প্রান হারায় এবং ২০ জনের মত মারাত্মক আহত হয়। ২৮ নভেম্বর ২০২০ বিরিশিরি বাস ষ্ট্যান্ডের নিকট এক দুর্ঘটনায় ২ টি পা হারান এক শ্রমিক। ৩০ নভেম্বর ২০২০ স্থানীয় নয়াপাড়া গ্রামের নিলুনা খাতুন স্বামী চাঁন মিয়াকে সাথে নিয়ে স্থানীয় কৃষ্ণেচর বাজারে কেনাকাটা করে অটো রিক্সা চরে নিজ বাড়ির কাছে ট্রাম ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘঁনাস্থলে প্রান হারান নিলুনা খাতুন (৫০)। তাছাড়া এ মহাসড়কে প্রতি মাসে শিশু, বৃদ্ধা, শিক্ষার্থী, ও মাদ্রাসার ছাত্রসহ ট্রাকের চাপায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যুবরন করেন প্রায় ২৫ জন। দুর্গাপুর নিরাপদ সড়কের দাবীতে ৩০ নভেম্বর ২০২০ পথসভা ও মানববন্ধন করেন নিরাপদ সড়ক চাই দুর্গাপুর উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। ২০ ডিসেম্বর ২০২০ রাতে দুর্গাপুর থেকে একটি বালু বাহী ট্্রাক ময়মনসিংহে যাওয়ার পথে শ্যামগঞ্জের বেলতলী মহাসড়কে বিপরীত দিক থেকে আসা যাত্রী বোঝাই সিত্রনজির মুখোমখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই তিন জন প্রান হারান। নিহতরা হলেন দুর্গাপুর উপজেলার ইন্দ্রপুর গ্রামের আবুল মনসুরের ছেলে মনির হোসেন (১৭), মেনকীফান্দা গ্রামের জনাব আলীর ছেলে মুল হক (৪৮) ও কলমাকান্দা উপজেলার গোরিপুর গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (৩৮)। ২৭ ডিসেম্বর ২০২০ সকাল ১০ টায় স্থানীয় আত্রাখালি ব্রীজ বালুরঘাট সংলগ্ন আঘার পাড়া ডাইভারশন রোডে দুর্গাপুর উপজেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি সর্দার তোতা মিয়া (৪৫) বালুর ট্রাকে পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই প্রান হারান। ঘটনার পর পরই সন্ধা পর্যন্ত দুর্গাপুরে সমস্থ ট্রাক চলাচল বন্ধ থাকে।

এমনিভাবে গত চার বছরে এই সড়কে প্রান হারান ৫০ জনের উপরে। দুর্গাপুর-শ্যামগঞ্জ মহাসড়কে দৈনন্দিন অদক্ষ ও অপ্রাপ্ত চালক দ্বারা যানবাহন চলাচল করায় মৃত্যুর হার বাড়ছে এমনটিই মনে করেন স্থানীয় সচেতন মহল। পথযাত্রীদের সর্বদাই আতস্ক ও ভীতির মধ্যে চলাচল করতে হয়। প্রায় প্রতিদিন সড়ক দুর্ঘটনায় দুর্গাপুর বাসীর জীবনকে দুর্দশাগ্রস্থ করে তুলেছে। দুর্গাপুর বাসীর প্রশ্ন ? আর কতকাল চলবে এমনিভাবে মৃত্যুর মিছিল। এ ব্যপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহি অফিসার ফারজানা খানম এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রশাসন সর্বদাই তৎপর রয়েছে। প্রতিমাসেই ২/৩ বার মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হচ্ছে। অদক্ষ্য ও অল্প বয়স্ক চালক বেপরোয়া গাড়ী চালানোর দায়ে অনাকাঙ্খিত ভাবে দুর্ঘটনার হার বাড়ছে। এটা দুক্ষজনক। তবে শ্রমিক নেত্রীবৃন্দের সাথে আলোচনা করে চালকদের প্রশিক্ষনের ব্যাবস্থা নেওয়া হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com