Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

দুর্গাপুরে সরকারি কলেজের অবহেলায় শিক্ষাবৃত্তি পায়নি হাজারো শিক্ষার্থী

রিপোর্টারের নাম / ২০৮ বার
আপডেট সময় :: মঙ্গলবার, ২৯ জুন, ২০২১, ৯:০০ পূর্বাহ্ন

দুর্গাপুর(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি : সারা দেশে করোনা মহামারি দেখা দেয়ায়, শিক্ষার মানকে উন্নত রাখতে দেশে এই প্রথমবারের মতো ৬ষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেনির শিক্ষার্থীদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী‘র শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট থেকে দেয়া হয়েছে শতভাগ শিক্ষাউপবৃত্তি। এরই প্রেক্ষিতে অন্যান্য স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা শিক্ষা-উপবৃত্তি পেলেও নেত্রকোনার দুর্গাপুরে এ থেকে বঞ্চিত হয়েছে প্রায় হাজারো শিক্ষাথী। সুসং সরকারি মহাবিদ্যালয়ের অবহেলায় এমনটি ঘটেছে বলে জানিয়েছেন অভিভাবকগন।

এ নিয়ে মঙ্গলবার সকালে শিক্ষার্থী অভিভাবকগন সাংবাদিকদের জানান, ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেনীর শিক্ষার্থীদের জন্য সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মসুচীর আওতায় সরকার কর্তৃক ঘোষিত শিক্ষা উপবৃত্তি প্রাপ্তির আবেদন ফরম কলেজের অবহেলায় নির্ধারিত সময়ে অনলাইনে পোস্টিং না দেয়ায় শিক্ষা বৃত্তিপ্রাপ্ত থেকে বঞ্চিত হয়েছে ওই কলেজের প্রায় হাজারো শিক্ষার্থী। ওই সময়ে কলেজ থেকে একটি প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছিলো, ১৭এপ্রিল বিকাল ২ঘটিকা পর্যন্ত ফরম জমা দেয়া যাবে। অথচ সরকার কর্তৃক ঘোষিত নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ২৭এপ্রিল রাত ১২ঘটিকার মধ্যে অনলাইনে শিক্ষার্থীদের সকল আবেদন পোস্টিং করতে হবে। বিশ্বস্ত সুত্রে খবর নিয়ে জানাগেছে, সুসং সরকারি কলেজে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে মানবিক শাখায় প্রায় ৮শত, বিজ্ঞান শাখায় ১৫০ ও বানিজ্য শাখায় ১১০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে। উপবৃত্তি প্রাপ্তির জন্য প্রায় ৯শত ৭১ জন ফরম জমা দিলেও মাত্র ৩৮জনের ফরম অনলাইনে পোস্টিং দিয়েছে ওই কলেজ।

বৃত্তিপ্রাপ্ত থেকে বঞ্চিত এক শিক্ষার্থী জানায়, উপবৃত্তির জন্য অনলাইনে ফরম পূরন করতে কলেজ কে ১০০ টাকা করে দিতে হয়েছে। কিন্ত তার পরেও বঞ্চিত হলাম শিক্ষাবৃত্তি থেকে। শিক্ষার মানকে উন্নত রাখতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একাদশ শ্রেনীর বিজ্ঞান শিক্ষার্থীদের ৬হাজার ৩শ এবং অন্যান্যদের জন্য ৫ হাজার ৮শ টাকা করে বৃত্তি দিয়েছেন। আমরা গরীব মানুষ, কেন এই শিক্ষা বৃত্তিপ্রাপ্ত থেকে বঞ্চিত হলাম এর দায়ভার কে নেবে ?

এ নিয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. গোলাম মোস্তফা বলেন, ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের উপবৃত্তির ফরম গত ২৩ এপ্রিলের মধ্যে অনলাইনে পোস্টিং দেয়ার কথা থাকলেও করোনার কারনে এর সময় বৃদ্ধি করে ২৭ এপ্রিল রাত ১২টা পর্যন্ত বেঁধে দেয়া হয়েছিলো। ওই কলেজ মাত্র ৩৮ জন শিক্ষার্থীদের ফরম অনলাইনে পোস্টিং দিলেও কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারনে অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের ফরম পোস্টিং দিতে পারেননি বিধায় শিক্ষাবৃত্তি প্রাপ্ত থেকে বঞ্চিত হয়েছে প্রায় ১হাজর শিক্ষার্থী। এর জবাবদিহিতা কলেজ কর্তৃপক্ষকেই দিতে হবে।

শিক্ষা উপবৃত্তির ফরম পোস্টিং নিয়ে ওই কলেজ অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান বলেন, উপবৃত্তির বিষয়ে ফরম পূরণ করতে কারও কাছ থেকে কোনো টাকা নেয়া হয়নি। সার্ভার সমস্যা থাকার কারনে নির্ধারিত সময়ে শিক্ষার্থীদের ফরম পোস্টিং দেয়া যায়নি। ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেনীর শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে দেরিতে ফরম জমা নেয়ার বিজ্ঞপ্তি এবং শিক্ষার্থীরা বৃত্তিপ্রাপ্ত থেকে বঞ্চিত হয়েছে এর দায়ভার কে নিবে ? এমন প্রশ্নে তিনি বারংবার বিষয়টি এড়িয়ে যান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com