Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

তাহিরপুরে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ

রিপোর্টারের নাম / ৬৯ বার
আপডেট সময় :: বৃহস্পতিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

তাহিরপুর(সুনামগঞ্জ)প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু পরিবারের সদস্যদের উপর হামলা ও লুপাটের ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

জোর পূর্বক দখলে নেয়া জমি জমার বিরোধকে কেন্দ্র করে উপজেলার বালিজুরী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য বরখলা গ্রামের মৃত খালেক মিয়ার ছেলে রেনু মিয়া মিয়াসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ করা হয়। উপজেলার বড়খলা গ্রামের গিতেন্দ্র পালের স্ত্রী বিনয় রানী পাল (৫০) বুধবার থানায় এ অভিযোগ করেন।

থানায় দেয়া অভিযোগে জানা গেছে,বিগত কয়েক বছর ধরে উপজেলার বরখলা মৌজার জাদুকাটা,বৌলাই ও রক্তি নদীর ত্রি-মোহনায় থাকা বরখলা গ্রামের সংখ্যালঘু পরিবারের গিতেন্দ্র পাল ও তার স্ত্রী বিনয় রানী পালের ১২ লক্ষাধিক টাকা মুল্যের ৬৫ শতাংশ ফসলী জমি জোর পূর্বক দখলে নেন ইউপি সদস্য রেনু মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন। দখলে নেয়ার পর ওই জমির শ্রেণি পরিবর্তন করে বিভিন্ন সুবিধাভোগী মহলের নিকট বালু পাথরের ডিপো-স্থাপনা তৈরীর সুযোগ দিয়ে গত প্রায় এক যুগ ধরে ইউপি সদস্য রেনু ভাড়া হিসাবে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

এ নিয়ে বিভিন্ন সময় গিতেন্দ্র পাল তার স্ত্রী দখলীয় জমি ফিরে পেতে থানা পুলিশ, জেলা পুলিশ, ইউএনও, জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন নিবেদন করার পর ইউপি সদস্য ও তার পরিবারের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন।

সম্পতি ফের অভিযোগ করায় বুধবার সকালে রেনু ও তার লোকজন বিনয় রানীর বসতবাড়িতে অনধিকার প্রবেশ পূর্বক হমকি ধামকি দেয়ার এক পর্যায়ে হামলা চালিয়ে তাকে ও তার স্বামীকে বেধরক ভাবে মারপিট করে বসতবাড়িতে ভাংচুর চালিয়ে ২০ হাজার টাকার ক্ষতিসাধান, বসতবাড়িতে থাকা দোকান হতে ৫০ হাজার টাকা লুটে নিয়ে যায়।

ইউপি সদস্যের সহোদর মনু , হারুন, আতিকুল,শাহাজ , তাজ ইসলামসহ নয় জনের বিরুদ্ধে থানায় হামলা, ভাংচুর ও লুপাটের অভিযোগ আনা হয়।
উপজেলার বরখলা গ্রামের বিনয় রানী পাল বললেন, আমরা গরীব প্রতিপক্ষ ইউপি সদস্য’র তার অবৈধ কর্মকান্ড জায়েজ করতে দু’হাতে টাকা পয়সা খরচ করেন এমনকি তার পেছনে প্রভাবশালী মহল মদদ জুগানোর ফলে আমরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ করেও ন্যায় বিচার হতে বঞ্চিত বরং অভিযোগ করার সাথে সাথে উল্টো হামলা মামলা মারধর, হুমকি –ধামকি হয়রানীর শিকার হয়েছি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি সদস্য রেনু মিয়া বলেন, আমি ও আমার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ভিক্তিহীন।

বৃহস্পতিবার থানার ওসি মো.আতিকুর রহমান অভিযোগ প্রাপ্তি প্রসঙ্গে বলেন, বিষয়টি তদন্তপুর্বক পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নিতে থানার একজন এসআইকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com