Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

কেন্দুয়ার ক্রেতা সেজে দোকানে ইউএনও

রিপোর্টারের নাম / ৭১ বার
আপডেট সময় :: রবিবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০১৯

দিগন্ত নিউজ ডেক্স : নিষিদ্ধ পলিথিন ব্যবহারের দায়ে নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় একটি ফলের দোকানিকে পাঁচ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শনিবার রাত ৯টার দিকে পৌরশহরের মডেল স্কুলসংলগ্ন এলাকায় ক্রেতা সেজে দোকানে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী হাকিম আল-ইমরান রুহুল ইসলাম। পরে নিষিদ্ধ পলিথিন ব্যবহারের দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ব্যবসায়ী আবদুল কাদেরকে পাঁচ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন ইউএনও।

প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার খোকার মোস্তাফিজুর রহমান এই বিভাগকে পলিথিনমুক্ত করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে পলিথিনের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয় নেত্রকোনা জেলা ও উপজেলা প্রশাসন।

প্রথমে জেলা শহরসহ সব কটি উপজেলার হাট-বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে পলিথিন শপিং ব্যাগ ও পলিথিনসামগ্রী ব্যবহার বন্ধ করার উদ্দেশ্যে সচেতনতামূলক শোভাযাত্রা, প্রচারপত্র বিলি, মাইকিং ও আলোচনা সভা হয়। এরপর পলিথিন বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়। বর্তমানে পলিথিনের ব্যবহার নেই বললেই চলে।

কিন্তু কেন্দুয়া পৌর শহরের মডেল স্কুলসংলগ্ন এলাকার ফল ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের গোপনে পলিথিন ব্যবহার করে আসছিলেন। এই তথ্য পেয়ে গত শনিবার রাত ৯টার দিকে ইউএনও আল-ইমরান রুহুল ইসলাম ক্রেতা সেজে ফল কিনতে যান। পরে ওই দোকানি ফল পরিমাপ করে একটি পলিথিন ব্যাগে ভরে দেন।

এ সময় ইউএনও পলিথিনের নেতিবাচক দিক ও পলিথিন নিষিদ্ধ বলে জানালে দোকানি তা মানতে চাননি। পরে দেখা যায় ওই দোকানটিতে কয়েক কেজি পলিথিন রয়েছে।

এ সময় ইউএনও তার সঙ্গে থাকা পুলিশসহ লোকজনের উপস্থিতিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসান। পরে দোকানি তার দোষ স্বীকার করে নিলে পাঁচ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।

ইউএনও আল-ইমরান রুহুল ইসলাম বলেন, বার বার সর্তক করার পরও ওই ফলের দোকানি পলিথিন ব্যবহার করছিলেন। পরে তাকে পাঁচ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com