Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

কুমিল্লায় নারীকে জবাই করে হত্যা, ঘাতক আটক

রিপোর্টারের নাম / ৮২ বার
আপডেট সময় :: রবিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৫৩ অপরাহ্ন

দিগন্ত ডেক্স : কুমিল্লা নাঙ্গলকোট উপজেলার ঢালুয়া ইউনিয়নের চান্দলা এলাকায় জবা বেগম (৭৫) কে তার নিজ ঘরে মৃত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পরিবার ও স্থানীয় লোকজন নাঙ্গলকোট থানায় খবর দিলে নাঙ্গলকোট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ সুরতহালের জন্য থানায় নিয়ে যায়। এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট থানা অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু হয়। এ ঘটনায় র‌্যাব খোরশেদ আলম (২৫)কে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত খোরশেদ আলম উপজেলার সিজিয়ারা গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের পুত্র। রোববার সন্ধ্যায় প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান র‌্যাব-১১, সিপিসি-২, কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন।

জিজ্ঞাসাবাদে খোরশেদ আলম (২৫) জানায় যে, সে খোরশেদ আলম নানী বলে সম্বোধন করত। ঘটনার দিন বিকালে আসামী মোঃ খোরশেদ আলম (২৫) কে নারিকেল বিক্রির জন্য প্রস্তাব দিলে আসামী জবা বেগমের বাড়িতে গিয়ে নারিকেল দেখে তাকে প্রতিটি নারিকেল ৩০ (ত্রিশ) টাকা করে দিবে বলে জানালেও ভিকটিম প্রতিটি নারিকেল ৪০ (চল্লিশ) টাকা করে চাহিদা দেয়। তখন ভিকটিমের ঘরের ভিতর বিভিন্ন দামী আসবাবপত্র ও লকার দেখে তার ভিতর লোভের সৃষ্টি হয় এবং সে পুনরায় এসে নারিকেলের দরদাম করে এবং কৌশলে তার ঘরের বিভিন্ন আসবাবপত্র সমূহ পর্যবেক্ষণ করে চলে যায়। পুনরায় তৃতীয় বার ভিকটিমের ঘরে আসে এবং ভিকটিম নারিকেল যে দামে বিক্রি করতে চেয়েছিল সেই দামে নারিকেল ক্রয় করিতে হত্যাকারী রাজী হয় এবং কৌশলে ভিকটিমের অজান্তে বসত ঘরের পূর্ব পার্শ্বের উত্তরের দরজা খুলে চলে যায়। পরবতীতে ভিকটিম ঘুমিয়ে পরলে পরিকল্পনা মোতাবেক রাতে আসামি ভিকটিমের বাড়িতে ঘরে প্রবেশ করে।

আসামি ভিকটিমের ঘরে প্রবেশ করে ঘরের ভিতর রক্ষিত আলমারি,আসবাবপত্র খোজাখুজি করে আলমারিতে রাখা নগদ মাত্র ২৫০০/- (দুই হাজার পাঁচশত) টাকা পায়,কিন্তু আসামির ধারনা ছিল সে অনেক টাকা স্বর্নালংকার পাবে কারন ভিকটিমের চার ছেলে প্রবাসী, অন্য ছেলে দেশে ভালো চাকুরি করে, ইতোমধ্যে ভিকটিম ঘরের মধ্যে আসামির উপস্তিথি টেরপায় তখন পালিয়ে যাবার সুযোগ থাকলেও আশানারুপ মালমাল না পাওযায় বৃদ্ধ মহিলাকে চাকু দ্বারা গলায় পোচ দিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত না হওয়া পর্যান্ত ভিকটিমের ঘরে অবস্থান করে।

পরবর্তীতে আলমারিতে রাখা নগদ মাত্র ২৫০০/- (দুই হাজার পাঁচশত) টাকা, ভিকটিমের ব্যবহৃত ০২টি মোবাইল ভিকটিমের হাতে থাকা স্বর্নের আংটি, নাকফুল ও কানের দুল খুলে নিয়ে ভিকটিমের ঘর থেকে চলে যায় এবং যাবার সময় প্রচলিত পথ ব্যবহার না করে রেললাইনের পথ ধরে তার নিজ বাড়িতে গমন করে। গ্রেফতারকৃত আসামিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আশানুরুপ টাকা-পয়সা ও স্বর্ণালংকার না পাওয়ায় ও চুরির সময় ভিকটিম তার উপস্থিতি বুঝতে পারায় সে নিজেই উক্ত হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে স্বীকার করে।

তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ৩১অক্টোন্বর তার বাসা থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত চাকু, চোরাইকৃত স্বর্ন অলংকার, মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। অজ্ঞাত হত্যা প্রতিরোধ ও হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে। গ্রেফতারকৃত আসামিকে সংশ্লিষ্ট মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com