Logo
নোটিশ ::
Wellcome to our website...

‘আম্পান’-এর পর যেসব সাইক্লোন আসবে

রিপোর্টারের নাম / ৬৫ বার
আপডেট সময় :: বৃহস্পতিবার, ২১ মে, ২০২০

ডেস্ক নিউজ : আর মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই উপকূলে আঘাত হানবে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’। যদিও ১৬ বছর আগেই এর নামকরণ করা হয়েছিল। ২০০৪ সালে এই সাইক্লোনটির নামটি দিয়েছিল থাইল্যান্ড। ‘আম্ফান’ শব্দের অর্থ আকাশ, কিন্তু বর্তমানে এটি ত্রাসের আর এক নাম হয়ে উঠেছে। আম্পানের পরে যে ঝড়গুলো আঘাত হানতে তার নামও ইতিমধ্যে দেওয়া হয়েছে।

বছর খানেক আগে তৈরি হওয়া তালিকার শেষ ঝড়টি হল আম্পান। এর আগে যে ঘূর্ণিঝড়টির সম্মুখীন হয়েছি আমরা, সেটির নাম ‘ফণী’। এই ঝড়টির নাম দিয়েছিল বাংলাদেশ। অনেকেরই কৌতূহল রয়েছে ঘূর্ণিঝড়ের নাম নিয়ে। তাহলে এবার ঘূর্ণিঝড়ের নাম আবিষ্কারের কাহিনী ও আম্ফানের পরবর্তী ঝড়গুলোর নাম কী হবে তা এবার জেনে নেওয়া যাক।

বিশ্বজুড়ে প্রতিটি সমুদ্র অববাহিকায় যে ঘূর্ণিঝড়গুলো তৈরি হয়, আঞ্চলিকভাবে বিশেষায়িত আবহাওয়া কেন্দ্র এবং ক্রান্তীয় ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কতা কেন্দ্রগুলোর দ্বারা সেগুলোর নামকরণ করা হয়। ওয়ার্ল্ড মেটিরিওলজিকাল অর্গানাইজেশন, ইউনাইটেড নেশন্স ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল কমিশন ফর এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগর বা ডব্লিউএমও ইস্কাপের তালিকাভূক্ত দেশগুলো বিভিন্ন ঝড়ের নাম প্রস্তাব করে। এই তালিকায় রয়েছে ভারত, বাংলাদেশ, মায়ানমার, পাকিস্তান, মালদ্বীপ, ওমান, শ্রীলঙ্কা এবং থাইল্যান্ডের নাম। এই অঞ্চলে উদ্ভুত ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ করে এই দেশগুলোই।

২০১৮ সালে ওয়ার্ল্ড মেটিরিওলজিকাল অর্গানাইজেশন আর ইস্কাপের তালিকায় আরও পাঁচটি দেশকে যুক্ত করা হয়েছে। এই পাঁচটি দেশ হল- ইরান, কাতার, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব এবং ইয়েমেন। এপ্রিলে প্রকাশিত নতুন তালিকায় ঘূর্ণিঝড়ের ১৬৯টি নাম রয়েছে। এর মধ্যে ঘূর্ণিঝড়ের নাম প্রস্তাবকারী ১৩টি দেশ থেকে ১৩টি প্রস্তাবিত নাম রয়েছে।

ঝড়ের নাম বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে ‘প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো’ কতগুলো নির্দিষ্ট শর্ত মেনে চলে। শর্তগুলো হল…

১. ঝড়ের নামটি কোনও রকম লিঙ্গ, রাজনীতি, ধর্ম এবং সংস্কৃতি নিরপেক্ষ হওয়া চাই।

২. ঝড়ের নামটি যেন কোনও ভাবেই কোন অনুভূতিতে আঘাত না করে।

৩. ঝড়ের নামটি যেন নিষ্ঠুরতা বা আপত্তিকর কোনও বিষয় না হয়।

৪. ঝড়ের নামটি যেন সংক্ষিপ্ত, সহজে উচ্চারণ করা যায়।

৫. ঝড়ের নামটি অবশ্যই ৮টি বর্ণের (লেটার) মধ্যে হতে হবে।

প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী আম্ফানের পরবর্তী ঘূর্ণিঝড়গুলোর নাম হল- নিসর্গ (বাংলাদেশের প্রস্তাবিত), গতি (ভারতের প্রস্তাবিত), নিভার (ইরানের প্রস্তাবিত), বুরেভি (মালদ্বীপ প্রস্তাবিত), তৌকতাই (মায়ানমারের প্রস্তাবিত) এবং ইয়াস (ওমান প্রস্তাবিত)।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

Theme Created By ThemesDealer.Com